Menu Close

কন্টেন্ট মার্কেটিং (Content Marketing):


একটি পোস্টে যা কিছু থাকে সবই কন্টেন্ট। হোক তা কোন লেখা, ছবি, ভিডিও, অডিও, বা কোন ফাইল সব কিছুই কন্টেন্টের অন্তর্ভুক্ত। আর কন্টেন্টকে কাজে লাগিয়ে যে মার্কেটিং করা হয় তা হল কন্টেন্ট মার্কেটং।

র‍্যান্ডম হাউজ ডিকশনারির মতে,

কন্টেন্ট মার্কেটিং হল, বিজ্ঞাপন প্রচার এবং পরিষেবা দেওয়ার প্রচলিত নিয়মের পরিবর্তে নির্দিষ্ট গ্রাহকদের কাছে সম্ভাব্য উপকারী তথ্যবহুল কন্টেন্ট পৌছে দিয়ে গ্রাহকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করা।

ছোট করে বলতে গেলে, কন্টেন্ট মার্কেটিং হল নির্দিষ্ট গ্রাহকদের কাছে উপকারী তথ্য পৌছে দেওয়ার মাধ্যমে নিজের পণ্যের দিকে গ্রাহকদের আকর্ষণ তৈরী করা। মানুষ বিজ্ঞাপনে সাধারনত বিরক্ত হয় ফলে বিজ্ঞাপনের মাধমে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা অনেক কঠিন। কিন্তু ভালো মানের কন্টেন্টে খুব সূক্ষভাবে কোন পণ্যের প্রতি দিক নির্দেশনা দেওয়া হলে মানুষ বিরক্ত হয়না ফলে পণ্যটির প্রতি মানুষের আগ্রহ বজায় থাকে।

১৯৭২ সালে প্রথম কন্টেন্ট মার্কেটিং এর প্রয়োগ দেখা যায়, বেঞ্জামিন ফ্র্যাঙ্কলিন এর প্রকাশিত পুওর রিচার্ড’স অ্যালম্যান্যাক বার্ষিকীতে। তিনি তার প্রিন্টিং ব্যবসা প্রসারের জন্য বার্ষিকীটা প্রকাশ করেছিলেন। ডিজিটাল মার্কেটিং এবং ফ্রিল্যান্সিং জগতের একটি জনপ্রিয় নাম হল কন্টেন্ট মার্কেটিং। কন্টেন্ট মার্কেটিং এর খরচ কম এবং অনেক দীর্ঘ সময় ধরে এর সুফল পাওয়া যায় বলে কন্টেন্ট মার্কেটিং দিনদিন আরও বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

 

কন্টেন্ট মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিতঃ


কন্টেন্ট মার্কেটিং সম্পর্কে বলার আগে আপনাদের ছোট একটি গল্প বলি। আমি একদিন বাসে যাচ্ছিলাম এমন সময় দেখলাম একটা ফকির টাপের লোক রাস্তায় হাঁটছিল আর আর সবাইকে ফ্রিতে একটা তাবিজ দিচ্ছিলো, সবাই ভির দিয়ে তার তাবিজ নিচ্ছিলো।তারপর লোকটি আরেকটি তাবিজ বেড় করে বললো যে এই তাবিজটা দিলে গ্যয়াস্টিক হবে না আর থাকলেও চলে যাবে তবে এটা কিন্তু ফ্রি না। যেহুতু সে এর আগে সবাইকে ফ্রিতে তাবিজ দিয়ে তার নিজের একটা ভালো ইমেজ বানিয়ে নিয়েছে তাই সবাই তার তাবিজ না কিনলেও অনেকে তার তাবিজ কিনেছিল এবং অন্যরা তাবিজটি হাতে নিয়ে দেখেছিল। এটা তার একটা অসাধারন মার্কেটিং পলেছি ছিল। আমরা যখন কোন ব্যক্তিকে সৎ/ভালো মনে করি তখন আমরা তার প্রতি বিশ্বাস করতে শুরু করি। এটা মানুষের স্বভাব। আর কন্টেন্ট মার্কেটিং এ এই বিশ্বাসকেই কাজে লাগানো হয়। প্রথমে সবাইকে ফ্রি তাবিজ দিয়ে নিজের একটা ভালো ইমেজ তৈরি করা এবং পারে সেই ইমেজ ব্যবহার করে তার পণ্যটি বিক্রি করা‌। কন্টেন্ট মার্কেটিং এর বিষয়টিও কিছুটা এইরকম।

প্রথমে লোককে কিছু ফ্রি দিয়ে তাদের মন জয় করেতে হয় এবং সেই সাথে মার্কেটিং প্রচার চালানো হয়। অনেক মানুষ অনলাইনে কেনাকাটা করে। আর যারা ই-কমার্স এর কাজ করেন তারা সবাই জানেন আনলাইনে কিছু বিক্রয় করা সহজ কাজ নয়, অনেক প্রতিযোগিতার ব্যপার। তাই কন্টেন্ট মার্কেটিং এখন সবার প্রিয় একটা বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আগেই বলেছি, কন্টেন্ট হল ইন্টারনেটে যেসব টেক্সট, ছবি, ভিডিও, অডিও ইত্যাদি আমরা দেখতে পাই মূলত সেগুলোই। লেখাকে বলা হয় টেক্সট কন্টেন্ট, ভিডিও কে বলে ভিডিও কন্টেন্ট এবং অডিও কে বলে অডিও কন্টেন্ট। এখান আপনি যদি গুরুত্বপূর্ণ কোন একটা কন্টেন্ট ইন্টারনেট এ ছাড়েন তাহলে অনেক মানুষ সেই কন্টেন্ট টি দেখবে। এবার আপনি যদি ঐ কন্টেন্ট এর সাথে সম্পর্কিত কোন পণ্যের কথা বলেন মানুষ তাতে বিরক্ত হবে না। ফলে অনেক বেশী মানুষ আপনার পণ্যটি গ্রহণ করবে। যেমন এই পোস্টে আমি যদি কন্টেন্ট মার্কেটিং কোর্স বা ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্স সেল করতে চাই আপনারা কিন্তু বিরক্ত হবেন না। কারন এই পোস্টটি তারাই পরবে যারা কন্টেন্ট মার্কেটিং সম্পর্কে জানতে চায়। আর এটাই কন্টেন্ট মার্কেটিং এর মূলনীতি।

 

কন্টেন্ট মার্কেটিং যেভাবে শুরু করবেনঃ


ইন্টারনেট এ অনেক মাধ্যম আছে যেমন ইউটিউব, ফেইসবুক, টুইটার বা নিজিস্ব একটি ওয়েবসাইট খুলে সেখানে কিছু কন্টেন্ট পাবলিশ করার মাধ্যমে কন্টেন্ট মার্কেটিং শুরু করতে পারেন। ফেসবুক মার্কেটিং, ইউটিউব মার্কেটিং সম্পূর্ণ ভাবে কন্টেন্ট মার্কেটিং এর উপর নির্ভর করে। তাই আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার সময় এটা খেয়াল রাখতে হবে যাতে আপনার প্রকাশিত তথ্য পাঠকের জন্য যথেষ্ঠ উপকারি হয়। তবে আজকাল ভিডিও কন্টেন্ট এর প্রচুর ডিমান্ড। তাই আপনি ইউটিউব চ্যনেল বা ফেসবুক চ্যনেল এর মাধ্যমে ভিডিও কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পারেন। এছাড়া যদি আপনি লেখা কন্টেন্ট প্রকাশ করতে চান তাহলে আপনার নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট লাগবে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় বড় পেইজ বা গ্রুপ প্রয়োজন হবে। এছাড়া আনলাইনে আরো অনেক মাধ্যম আছে লেখা কন্টেন্ট পাবলিশ করার জন্য। নিচে কন্টেন্ট মার্কেটিং করার কয়েকটি উপায় তুলে ধরা হল।

  • ব্লগিং বা কন্টেন্ট রাইটিং
  • অডিও পডকাস্ট
  • ইউটিউবে ভিডিও
  • সোশ্যাল মিডিয়া ফলোয়ার
  • ইনফোগ্রাফিক
  • অন্যান্য পপুলার ব্লগে গেস্ট পোস্ট
  • বই বা হোয়াইট পেপার লেখা
  • ওয়েবিনার করা

 

কন্টেন্ট মার্কেটিং করে যেভাবে ইনকাম করা যায়ঃ


কন্টেন্ট মার্কেটিং বলতে কি বোঝায় আমি সেটা উপরে বলে এসেছি। আপনার কন্টেন্ট যারা দেখবে তারা আপনাকে টাকা দেবে না। আপনাকে যেটা করতে হবে তা হল ভালো ভালো কন্টেন্ট প্রকাশ করে লোক নিয়ে আসতে হবে আপনার ওয়েবসাইটে এবং পোস্টের সাথে সম্পর্কিত  কোন একটা পণ্য বা সেবা আফার করতে হবে। এখন যদি পোস্টের সাথে সম্পর্কিত কোন পণ্য আপনার না থাকে তাহলে আপনি কি করবেন? আপনি যা করতে পারেন তা হলো এমন অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা তাদের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস নিজেদের পাশাপাশি বাহিরের লোককে সেল করতে দেয় বিনিময়ে তাদের লাভ থেকে একটা অংশ কন্টেন্ট মার্কেটারদের দিয়ে থাকে। এই কাজকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলে। বর্তমানে প্রায় সকল ই-কমার্স সাইট অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সুবিধা রাখে তাদের ওয়েবসাইটে। এরকম কিছু জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান হলো- আ্যমাজোন.কম, মিশো আ্যপ, ইভেলি.কম, আলিবাবা.কম।

 

তথ্যসূত্রঃ


১। ডিকশনারি.কম

২। টুটস+

অন্যান্য পোস্টসমূহঃ

error: Content is protected !!