Menu Close

ডার্ক ওয়েব (ইন্টারনেট এর অন্ধকার জগত)


ইন্টারনেট Internet, ডার্ক ওয়েব, Dark web

ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব এর একটি অংশ হলো ডার্ক ওয়েব যা ডিপ ওয়েব (গভীর ওয়েব বা লুকানো নেট)-এ বিদ্যমান। আমরা ইন্টরনেটের কেবল মাত্র ৫-৬ শতাংশ ব্যবহার করতে পারি, বাকি ৯৪-৯৫ শতাংশ লুকিয়ে রাখা হয়েছে সাধারণ মানুষের থেকে। যেখানে সাধারণ কোন মানুষ প্রোবেশ করতে পারে না আর এই অংশকে বলা হয় ডিপ ওয়েব বা ডিপ নেট। যদিও অনেকেই ডিপ ওয়েব ও ডার্ক ওয়েবকে একই মনে করে থাকে তবে প্রকৃতপক্ষে বিষয় দুটি আলাদা। ডার্ক ওয়েব হচ্ছে ডিপ ওয়েবের একটি ছোট্ট অংশ বিশেষ। এই অংশে সার্চ ইঞ্জিন প্রবেশ করতে পারে না। ডার্ক ওয়েবে নির্দিষ্ট কিছু শর্তে সাপেক্ষে প্রবেশ করা গেলেও, ডিপ ওয়েব সাধারণ মানুষের ঢোকার জন্য সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

সাধারণ কোন ব্রাউজার দিয়ে ডার্ক ওয়েব বা অন্ধকার ওয়েব এ প্রবেশ করা যায় না। এতে প্রবেশ করতে নির্দিষ্ট সফটওয়্যার, কনফিগারেশন বা অনুমোদনের প্রয়োজন হয়। বা প্রথমে আইপি এড্রেস চেন্জ করে টর নামক একটা ব্রাউজার দিয়ে এই ডার্কনেটে ঢোকা হয়। এখানে পাওয়া যায় না এমন কোন জিনিস নেই। অপরাধ জগতের ছোট থেকে বড় সকল কিছু পাওয়া যায় এখানে। তবে হ্যা প্রতিটি জিনিসের জন্য আপনাকে মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করতে হবে। যত ধরনের মারাক্তক ও নিষিদ্ধ ড্রাগ ও বিষ এইখানে পাওয়া যায়। এছাড়া সমস্ত নিষিদ্ধ মুভি ও পর্ন ইন্টারনেট এর এই লুকানো অংশে পাওয়া যায়। এমনকি এই ডার্ক ওয়েবে এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে যেগুলোতে প্রবেশ করার আগে অর্থ দিয়ে প্রোবেশ করতে হয়। এসব ওয়েবসাইট কিছুটা সিনেমা থিয়েটার এর মতো। তবে সিনেমা হলে মুলত ঢুকলে আপনি ছবি দেখতে পারবেন কিন্তু এখানে ঢুকলে আপনি দেখতে পারবেন মানুষকে নানাভাবে আত্যচার করার ভিডিও। আমার মনে হয় না কোন মানুষিক রোগি ছাড়া সাধারণ কোন মানুষ টাকা দিয়ে এই ভিডিও দেখে। কোন সুস্থ মানুষেকে এই ভিডিওগুলো দেখালে সে আর সুস্থ থাকতে পারবে।

এখানে শুধু এইধরনের খারাপ ভিডিও আর ড্রাগস পাওয়া যায় তা নয় এছাড়া আরো অনেক ধরনের জিনিস পাওয়া যায় যেমন বিভিন্ন আস্ত্র, বোমা, বিভিন্ন দুর্মূল্য জিনিস যা বাহিরে সহজে পাওয়া যায় না তা চোরা কারবাররা এখানে বিক্রি করে। আমরা মুভিতে যেরকম ভাড়ি ভাড়ি আস্ত্র ও বোমা দেখতে পাই ওইধরনের আস্ত্র এখান থেকে কেনাটা সাধারণ বিষয়। প্রতিটা জিনিস কেনার জন্য আমরা যেমন আলাদা আলাদা দোকানে যাই তেমনি সেখানেও এক একটা জিনিসের জন্য আলাদা আলাদা মার্কেট প্লেস রয়েছে। সেখানে ড্রাগস ও নেশাজাতীয় দ্রব্য সেল করার জন্য একটি মার্কেটে প্লেস, আস্ত্র সেল করার জন্য আলাদা একটি মার্কেট প্লেস রয়েছে। আমাদের দেশে ও বিভিন্ন দেশ থেকে কিডনাপ করা মেয়েদের এই ডার্ক ওয়েব এর মাধ্যমে পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করা হয়। সব ধরনের আপরাধ মূলক কাজ এই ডার্ক ওয়েবের মাধ্যমে করা হয়। এমন কি আপনি চাইলে এখান থেকে মানুষকে খুন করার জন্য খুনি ভাড়া করে নিতে পারবেন ।শুধু মাত্র খুনি নয় চাইলে এখান থেকে হ্যাকার ভাড়া করতে পারবেন। আপনি যদি হ্যাকার ভাড়া না করে হ্যাকিং করতে চান তাহলে হ্যাকিং এর বিভিন্ন টুলস, স্যফটোয়ার, ম্যলোয়ার ও ভাইরাস কিনতে পারবেন। এখানকার বেশিরভাগ ডিল হয় মূলত বিট কয়েন এর মাধ্যমে। ডার্ক ওয়েব এর মাধ্যমে যেহুতু অপরাধ মূলক কাজ করা হয় তাই পৃথিবীর সকল দেশের সাধারণ মানুষের জন্য এখানে প্রোবেশ নিষেধ। যদি কেউ এই ডার্ক ওয়েবে প্রোবেশ করতে গিয়ে ধরা খায় তাহলে আইন তার জন্য কঠিন ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

অনেকেই ইউটিউব এর নানা ভিডিও দেখে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে যায় কিন্তু এটা একদমই ঠিক না। আর এই ভুল অনেক বড় বিপদ নিয়ে আসতে পারে। কারন এইখানে শুধু যে খারাপ লোক আছে তা নয় অনেক আইনের লোকও এখানে আছে। তারা নানা রকম ফাঁদ বিছিয়ে রাখে যাতে যদি কেউ এখানে কোন খারাপ কাজ করতে চায় তাকে সহজেই ধরতে পারে। বিভিন্ন সরকারের পক্ষ থেকে ডার্ক ওয়েব এর ওয়েবসাইটগুলো ডাউন করে দেওয়া হয়। বিভিন্ন দেশের সরকার ও সাইবার সিকিউরিটি স্পেশালিস্টরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাচ্ছে এসব খারাপ লোকদের ধরার জন্য কিন্ত তারপরও বিভিন্ন হ্যাকার ও মাফিয়াদের স্বর্গ রাজ্য হলো ডার্ক ওয়েব।

অন্যান্য পোস্টসমূহঃ

error: Content is protected !!