Menu Close

হ্যাকিং(Hacking):


হ্যাকিং হচ্ছে কারো অনুমতি ছাড়া তার কম্পিউটার নেটওয়ার্ক বা কম্পিউটার এ প্রবেশ করে ব্যবহার করা এবং তথ্য বা অর্থ চুরি করটাই হ্যাকিং শুধু কম্পিউটার নয় আধুনিক যে কোন ডিজিটাল ডিভাইস এর গঠনগত ভুল খুঁজে বের করে সেটা নিজের ইচ্ছে মত ব্যবহার করাটাই হ্যাকিং এর আয়ওতায় পরে।যারা হ্যাকিং করে তাদের হ্যকার বলে।হ্যকাররা সাধারণত যে সিস্টেম হ্যক করবে সেটা নিয়ে গবেষণা করে তার দুর্বলতা খুঁজে বের করা এবং সেই দুর্বলতাকে ব্যবহার করে সিস্টেমকে নিজের নিয়ন্ত্রণ এ নিয়ে আসে।তাই একজন হ্যকারকে অনেক দূরদর্শী চালাক ও ট্যলেন্টেড হতে হয়। একজন হ্যকার যে সিস্টেম হ্যাক করছে সেই সিস্টেম যিনি তৈরি করছে তার চাইতে যিনি হ্যক করতে চাইছে তাকে আরো বেশি ট্যলেন্টড ও বুদ্ধিমান হতে হয়। একটা জিনিস এর যেমন ভালো ও খারাপ দিক থাকে তেমনি হ্যকিং এর ভালো খারাপ দুইটি দিক আছে। হ্যাকিং ভালো কাজ ও খারাপ কাজ দুইভাবে ই ব্যবহার করা যায়।তাই একজন হ্যকার তার হ্যকিং স্কিলকে কি কাজে ব্যবহার করছে তার উপর নির্ভর করে হ্যাকার কে তিন ভাগে ভাগ করা হয় যথানঃ
(১) হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার
(২) ব্লাক হ্যাট হ্যাকার
‌(৩) গ্রে হ্যাট হ্যাকার বলে

হোয়াইট হ্যাট হ্যাকারঃ

যারা নিজের হ্যকিং স্কিলকে ভালো কাজের জন্য ব্যবহার করে এবং কখনো নিজের হ্যাকিং স্কিল কে খারাপ কাজে ব্যবহার করে না তাদেরকেই মুলত হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার বলে।হোয়াইট হ্যট হ্যাকার কে ইথিক্যল হ্যকার ও বলা হয়।এই ধরনের হ্যাকার মুলত বিভিন্ন কম্পানির সিস্টেম দেখা শুনা করে এবং তাদের সিস্টেম এ কেউ অনৈতিকভাবে প্রোবেশ করতে চাইলে তাদের চেষ্টাকে বানচাল করাই হোয়াই হ্যট হ্যাকার এর কাজ। হোয়াইট হ্যট হ্যাকার মুলত সনদ প্রাপ্ত হয়ে থাকে এবং এ খুব পারদর্শী হয়ে থাকে। হোয়াইট হ্যট হ্যাকারদের কাজ হচ্ছে নিজের সিস্টেমকে ব্লাকহ্যট হ্যাকারদের হাত থেকে বাচানো

ব্লাক হ্যাট হ্যাকারঃ

যে হ্যাকার অনুমতি ছাড়া বিভিন্ন ডিজিটাল সিস্টেম প্রোবেশ করে অর্থ ও তথ্য চুরি করে বা সিস্টেম ব্রেক করে দেয় তাদের ব্লাক হ্যাট হ্যাকার বলে।ব্লাক হ্যাট হ্যাকার অনেক ভয়ানক হয়ে থাকে।এদের কোন আইপি এড্রেস থাকে না তাই এদের ট্রেস করা যায়না।এই ধরনের হ্যাকারের হাতে কোন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পড়ে গেলে এরা তা দিয়ে অনেক বড় ক্ষতিসাধন করতে পারে। ব্লাক হ্যাট হ্যাকার মুলত বিভিন্ন সিস্টেম এর দুর্বলতা খুঁজে বেড়ায় এবং ওই সিস্টেম এর সাইবার সিকিউরিটি স্পেশালিস্ট এর চোখে ধুলো দিয়ে ওই সিস্টেমে প্রবেশ করা।

গ্রে হ্যাট হ্যাকারঃ

গ্ৰে হ্যাট হ্যাকার রা মুলত নিজের হ্যাকিং স্কিল ভালো ও খারাপ দূই কাজের জন্যই ব্যবহার করে
এরা মুলত নিজের স্বার্থ অনুযায়ী বা যে সংস্থার সাথে কাজ করছে তার চাহিদা অনুযায়ী হ্যাকিং করে থাকে এধরনের হ্যাকারকে মুলত গ্ৰে হ্যাট হ্যাকার বলে।যেমন ধরুন একজন হ্যাকার একটা কম্পনির সাথে কাজ করছে এখন সেই কম্পনির কিছু তথ্য চাই যেগুলো তাদের কাছে নাই তাই তারা বিভিন্ন কম্পনির ডাটাবেজ হ্যক করে তাদের যে তথ্য সেটা আনতে চায় এজন্য ওই কম্পনি তাদের যে সাইবার সিকিউরিটি স্পেশালিস্ট তাকে বললো এবং তিনি ওই ডাটাবেজ হ্যাক করে তথ্য নিয়ে এলেন এখানে কিন্তু সে অনৈতিক ভাবে একজনের ডাটাবেজ এ প্রবেশ করছে এবং কম্পানির দেওয়া কাজ ও ঠিকভাবে করছে তাই এটাকে মূলত ‌গ্রে হ্যাট হ্যাকার বলে।
কম্পিউটার বিশ্বে এখন হ্যাকিং খুবই প্রচলিত শব্দ হয়ে উঠেছে এখন প্রতিনিয়ত বহু মানুষ হ্যাকিং এর শিকার হচ্ছে। একজন হ্যাকারকে কম্পিউটার ও কম্পিউটার সিস্টেম সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হয়।

অন্যান্য পোস্টসমূহঃ

error: Content is protected !!